Sunday, 21 July 2024
Trending

বাংলা

সেন্ট পলস স্কুল এলুমনি অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যগণ মিলিত হলেন বাৎসরিক পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে

নিজস্ব প্রতিনিধি –

পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে মাতলেন দ্বিশতবর্ষ অতিক্রান্ত কোলকাতার ‘সেন্ট পলস স্কুল’-এর প্রাক্তন ছাত্রদের সংগঠন (St. Paul’s School Alumni Association)। দিনভর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অতীত স্মৃতি রোমন্থনের পাশাপাশি নবীন প্রজন্মের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কামনায় মুখরিত ছিল রাজা রামমোহন সরণী-র ‘সেন্ট পলস স্কুল’-এর প্রাক্তন ছাত্রগণ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১৮২২ সালে প্রাথমিক শিক্ষাকেন্দ্র রূপে শুরু হওয়া এই বিদ্যালয়ে পরবর্তী সময়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের পঠন পাঠনও শুরু হয়।

বিদ্যালয়ের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রদের সংগঠনের তরফে সভাপতি সুমিত হালদার (শুমিত

Halder, President, St. Paul’s School Alumni Association) জানান, “দ্বিশতবর্ষ অতিক্রান্ত এই বিদ্যালয়ে অতীত দিনে বিভিন্ন সময়ে অধ্যক্ষ রূপে গুরুদায়িত্ব সামলেছেন জেটা, জেমস লং, কৃষ্ণমোহন বন্দ্যোপাধ্যায়, মানিক বিশ্বাস, শশধর সাহা-র মতো ব্যক্তিগণ।” পুনর্মিলনের দিনে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে প্রাক্তনীদের তরফে সহ সভাপতি ডাঃ

কাঞ্চন পাঠক (Dr. Kanchan Pathak, Vice President, St. Paul’s School Alumni Association) বলেন, “আমাদের শিক্ষকগণ প্রথাগত পঠনপাঠনের মতে ছাত্রদের আটকে রাখার বদলে তাঁদের আভ্যন্তরীণ সৃজনশীলতাকে প্রকাশের দিকেও নজর রাখতেন। এরই ফলশ্রুতিতে আমরা পেয়েছি এশিয়ান গেমস জয়ী সাঁতারু আশিস দাস-এর মতো একাধিক সতীর্থদের।”

অন্যদিকে প্রাক্তন ছাত্রদের তরফে সংগঠনের সম্পাদক সোমনাথ সরকার (Somnath Sarkar, Secretary, St. Paul’s School Alumni Association) জানিয়েছেন, “এই বিদ্যালয় থেকে শিক্ষা নিয়েই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ছাত্র সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিদ্যালয়ের নাম উজ্জ্বল করেছেন। আমাদের প্রাক্তনীদের মধ্যে রয়েছে বিজ্ঞানী শান্তিপদ গণ চৌধুরী, স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইণ্ডিয়া-র প্রাক্তন মহা-প্রবন্ধক সুপ্রিয় বসু, এয়ার ইন্ডিয়ার প্রাক্তন মহা-প্রবন্ধক সুমিত হালদার, নাক কান গলা-র বিশিষ্ট শল্য চিকিৎসক ডাঃ কাঞ্চন পাঠক, অর্থনীতিবিদ ডঃ প্রফেসার তমোনাশ গাঙ্গুলী ও প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ সোমেন মিত্র-র মতো ছাত্ররা।”

সকাল থেকেই বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গণ ভরে উঠতে থাকে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রদের কলরবে।
অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে প্রাক্তন ছাত্রদের সংগঠনের তরফে সহ সম্পাদক হীরক সেনশর্মা (Hirak Sensharma, Assistant Secretary), কোষাধ্যক্ষ শোভন দে (Shovan Dey, Treasurer), ও কার্যনির্বাহী সমিতির দুই সদস্য লালু সিং (Lalu Sing, Executive Member) ও সমীর বোস (Samir Bose, Executive Member) একযোগে জানান বাৎসরিক পুনর্মিলন অনুষ্ঠানের অঙ্গ রূপে যে বছরের ছাত্ররা বেশি এসেছেন তাঁদের যেমন ট্রফি দেওয়া হয়েছে, ঠিক সেভাবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত সব থেকে বেশি বয়সের প্রাক্তন ছাত্রদেরকেও বিশেষ ভাবে সম্মানিত করা হয়েছে। এর পাশাপাশি বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক ও একজন প্রাক্তন শিক্ষককেও সম্মানিত করা হয়েছে।”